ত্রিপুরায় প্রতিমাসে খুন গড়ে ১২ জন রাজ্যে অপরাধ ক্রমবর্ধমান

 

প্রসেনজিৎ দাস, ত্রিপুরা

ত্রিপুরায় প্রতিমাসে খুন গড়ে ১২ জন রাজ্যে অপরাধ ক্রমবর্ধমান।
রাজ্যের সাধারণ আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি উন্নতির কোনও লক্ষণ নেই। রাজ্য পুলিশের অপরাধ পরিসংখ্যান এর প্রমাণ। পুলিশ সদর দপ্তর থেকে প্রকাশিত অপরাধ পরিসংখ্যান থেকে জানা যায়, খুনের সংখ্যা গত কয়েক বছর ধরে প্রায় একই হারে রয়েছে। প্রতি মাসে প্রায় ১২ জন খুন হচ্ছে রাজ্যে। ২০১৪-তে গড়ে প্রতিমাসে খুন হয়েছে ১২ জন, ২০১৫-তে গড়ে প্রতিমাসে খুন হয়েছে ১২ জন।

২০১৬-তে গড়ে প্রতি মাসে খুন হয়েছে ১২ জন। শুধুমাত্র ২০১৭-তে প্রতিমাসে গড়ে খুন হয়েছে ১০ জন। চলতি বছর সেটা বেড়ে আবার ১২জন হয়ে গেছে। এ বছর জানুয়ারী থেকে আগষ্ট পর্যন্ত রাজ্যে খুন হয়েছে ৯৩ জন। গড়ে ১২ জন প্রতিমাসে। গত মার্চ থেকে আগষ্ট পর্যন্ত ৬ মাসে খুন হয়েছে ৭১ জন। গড়ে প্রতিমাসে ১২ জন। মার্চে খুন হয়েছে ১৫ জন, এপ্রিলে ৯ জন, মে মাসে ৬ জন, জুন মাসে ১৫ জন, জুলাই মাসে ১৩ জন ও আগষ্ট মাসে ১৩ জন খুন হয়েছে। এই পরিসংখ্যান থেকে স্পষ্ট বােঝা যায়, রাজ্যে সরকার বদলের পর খুনের সংখ্যা হ্রাস পায়নি। চুরির ক্ষেত্রেও দেখা যায়, গত মার্চ মাস থেকে হঠাৎ করে বেড়ে গেছে। পুলিশ সদর দপ্তরের পরিসংখ্যান অনুযায়ী গত মার্চ থেকে আগষ্ট পর্যন্ত ছয়মাসে রাজ্যে। প্রতিমাসে গড়ে ৩৪টি চুরির ঘটনা ঘটেছে। অর্থাৎ প্রতিদিন একটির বেশি চুরির ঘটনা ঘটছে। জানুয়ারী মাস থেকে আগষ্ট পর্যন্ত এই আটমাসে রাজ্যে চুরির ঘটনা ২৪৮টি। গড়ে প্রতি মাসে ৩১টি। লক্ষণীয় তথ্য হলাে, জানুয়ারী মাসে চুরি হয়েছে ২০টি ও ফেব্রুয়ারীতে ২২টি। মার্চ মাসে সরকার বদলের পর হঠাৎ চুরির ঘটনা বেড়ে দাঁড়ায় ৪৩টি। এপ্রিলে ৪৬, মে মাসে ২৮, জুন মাসে ২৫, জুলাই মাসে ৩৪, আগষ্ট মাসে ৩০ গত তিন বছরের তথ্য বিশ্লেষণে দেখা যায়, ২০১৫-তে প্রতিমাসে গড়ে চুরির ঘটনা ২৩টি, ২০১৬-তে প্রতি মাসে গড়ে চুরির ঘটনা ২০টি, ২০১৭-তে প্রতি মাসে গড়ে চুরির ঘটনা ২৩টি। দাঙ্গাহাঙ্গামার ঘটনাও হ্রাস হয়েছে বলে পুলিশ সদর দপ্তরের রিপাের্ট ছেনা। গত ৮ মাসে রাজ্যে দাঙ্গা হাঙ্গামার ঘটনা ঘটেছে২০১টি। গড়ে প্রতি মাসে ২৫টি ঘটনা। গত মার্চ থেকে আগষ্ট পর্যন্ত রাজ্যে দাঙ্গা হাঙ্গামার ঘটনা ঘটেছে ১৩৩টি। গড়ে প্রতি মাসে ২২টি ঘটনা। পক্ষান্তরে ২০১৭তে রাজ্যে দাঙ্গাহাঙ্গামার ঘটনা ঘটেছে গড়ে প্রতিমাসে ১০টি।

আরও পড়ুন   "মোটা, কুৎসিত মেয়েদের কাজই হলো মানুষদের দোষারোপ করা",তার বিরুদ্ধে ধর্ষনের অভিযোগ ওঠায় এমন বিস্ফোরক মন্তব্য ক‍রলেন গায়ক অভিজিৎ ভট্টাচার্য

২০১৬-তে গড়ে প্রতিমাসে ৬টির বেশি। ২০১৫ সালে গড়ে প্রতিমাসে ৬টি ঘটনা। অপহরণের গ্রাফও উর্ধ্বমুখী। ২০১৫-তে রাজ্যে অপহৃত হয়েছে ১৫৩ জন। ২০১৬-তে রাজ্যে অপহৃত হয়েছে ১৩৮ জন। ২০১৭-তে অপহৃত হয়েছে। ১১৬ জন। ২০১৮-তে প্রথম ৮ মাসেই অপহৃত হয়েছে ১১৭ জন। এক্ষেত্রেও দেখা যায়, মার্চ মাস থেকে অপহরণের সংখ্যা বেড়ে গেছে। মার্চ মাস থেকে অপহরণের সংখ্যা বেড়ে গেছে। মার্চ থেকে আগষ্ট পর্যন্ত এই ছয়মাসে ১০৫ জন রাজ্যে অপহৃত হয়েছে। গড়ে প্রতিমাসে ১৭ জনের বেশি অপহৃত হচ্ছে। গত বছর প্রতিমাসে গড়ে ১০ জন অপহৃত হয়েছিল। সেটা বেড়ে এখন ১৭ জন। অপহৃতদের মধ্যে কতজন ফিরে আসছে বা এসেছে তার তথ্য জানা যায়নি। আই পি সি ধারায় অভিযােগ হয়েছে। গত ৮ মাসে ৩৮০৯টি। প্রতিমাসে গড়ে ৪৭৬টি অভিযােগ। ২০১৭ সালে আই পি সি অভিযােগ লিপিবদ্ধ হয়েছে ৪০৫৫টি। গড়ে প্রতিমাসে ৩৩৮টি। ২০১৬তে আরও কম ছিল। নন আই পি সি অভিযােগ গত ৮ মাসে ৪১৬টি। ২০১৭তে ছিল ১৮১টি, ২০১৬-তে ছিল ১৪৭টি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


  • Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
    error: