‘বৈশাখিকে ভোলা সম্ভব নয়’, শোভন বোঝালেন সম্পর্কের জন্য দল-পদ ছাড়তে তৈরি

হয় বৈশাখি। না হয় দল। হয় বৈশাখি নয় মেয়র-মন্ত্রী হওয়া। কলকাতার মেয়র শোভন চ্যাটার্জি বেছে নিলেন বৈশাখিকেই। এখন তিনি যে জায়গায় দাঁড়িয়ে তাতে বৈশাখিকে দূরে ঠেললে পদ ধরে রাখতে পারতেন। কিন্তু না, শোভন চ্যাটার্জি জানিয়ে দিলেন, “প্রয়োজনে অনেকেই বৈশাখীর কাছ থেকে সাহায্য নিয়েছেন, আজ ভুলে গিয়েছেন। আমার পক্ষে বৈশাখীকে ভোলা সম্ভব নয়।”

পাশাপাশি শোভন জানান, বৈশাখী তাঁর অনেক দিনের পারিবারিক বন্ধু। তিনি এখন ভালো সময়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছেন না। বৈশাখীকে এ সময় তিনি পাশে পেয়েছেন। বৈশাখী না থাকলে তিনি অস্তিত্ব সঙ্কটে ভুগতেন বলেও সাফ জানিয়েছেন শোভন। আর এরপরই শোভন বলেন, “বৈশাখীর উপর কোনও আঘাত আসার আগে, সে আঘাত তিনি রুখবেন।

বেহালা পূর্বের বিধায়ক জানান, নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কখনই তাঁকে বৈশাখীর ব্যাপারে কোনও প্রশ্ন করেননি। বস্তুত, বৈশাখীর প্রশ্ন রাজনৈতিক ক্ষেত্রে কেন আসছে, সেটা নিয়েই মর্মাহত শোভন। এদিন সরাসরি শোভন অভিযোগ করেন, ব্যাক্তিগত স্বার্থসিদ্ধি করতেই অনেকে বৈশাখীর সঙ্গে তাঁর নাম জড়িয়ে রাজনৈতিক জীবনকে বিপর্যস্ত করতে চাইছে।

ওয়েবকুপা থেকে বৈশাখীর অপসরণ অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক। বলেও শোভন জানান। এরপর তাঁর ‘প্রাক্তন’ স্ত্রী রত্না চট্টোপাধ্যায়ের প্রসঙ্গ উঠতেই, আরও বিস্ফোরক দাবি করেন শোভন। কলকাতার মেয়র জানান, শুধু তিনিই নয় তাঁর প্রাক্তন স্ত্রী রত্নাও বৈশাখীর থেকে সাহায্য নিয়েছেন। রত্না ও বৈশাখীর সম্পর্ক যে একসময় বেশ ভালো ছিল, এদিন সে কথাও জানান শোভন।