পাকিস্তানের একটি গ্রাম গুহাবাসী! কেন জানেন!

 

বাংলা hunt ডেস্ক : বিংশ শতাব্দীতেও মানুষ যে সেচ্ছায় গুহাবাসী হতে পারে তা নিজ চোখে না দেখে কেউ বিশ্বাসই করবে না। যদিও আদিম যুগে মানুষ ছিল গুহাবাসী। আধুনিক সময়ে সবাই পরিবেশ অনু্যায়ী বাড়ি তৈরি করে সেখানেই বসবাস করে। কিন্তু পাকিস্তানে এমন একটি গ্রাম আছে, যাদের বাড়ি বলে কিছু নেই। গ্রামের অধিকাংশ মানুষ বাস করেন পাহাড়ের গুহায়। কারণ বাড়ি বানানোর খরচ আকাশছোঁয়া। এই পরিস্থিতিতে হয় মাটির বাড়ি তৈরি করে বাস করতে হবে, আর না হয় আশ্রয় নিতে হবে গাছতলা বা ফুটপাতে। মাটির বাড়ি তৈরি করলে ভূমিকম্প বা বৃষ্টিতে তা ভেঙে গুড়িয়ে যায়। তাই নিখরচায় পাহাড়ি এলাকায় টিলা বা মালভূমির গুহাতেই আশ্রয় নিচ্ছেন বুরেবাসী। তাঁরা বলছেন, পাকিস্তানের আবহাওয়ার সঙ্গেও এই বাড়িগুলি বেশ মানানসই।

 

কারণ, বাইরে যখন প্রচণ্ড শীত তখনও ঘরের ভিতরের উষ্ণতা একই থাকে। আবার প্রচণ্ড ঝড় বৃষ্টি হলেও সমস্যা হয় না। গুহাবাসী এই গ্রামের নাম বুরে। পাকিস্তানের রাজধানী থেকে উত্তর-পশ্চিমে মাত্র ৬০ কিলোমিটার দূরে এই গ্রামে দু’একটি পরিবার ছাড়া সকলেই গুহায় থাকেন। অবশ্য গুহাগুলিতে রং করে এবং থাকার জন্য আধুনিক করে নেওয়া হয়েছে। আর বৈদ্যুতিক সংযোগ থাকায় দেখে বোঝার উপায় নেই এগুলি গুহা। যাবেন না কি ঘুরে দেখতে।

প্রতি মুহূর্তের সব রকম খবর জানতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইট করুন


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *