মোদীকে আটকাতে ভাইপোর নয়া ছক

 

 

বাংলা hunt ডেস্ক : লোকসভা নির্বাচনের আগেই নয়া ছক তৈরী করে ফেলল সমাজবাদী পার্টির সুপ্রিমো অখিলেশ যাদব। ২০১৯-র নির্বাচনে পিসির সঙ্গে পাশে থেকে লড়তে চান ভাইপো। এর জন্য কয়েকটি আসন হারাতে হলেও এই সিদ্ধান্তেই বদ্ধপরিকর থাকবেন বলে সাফ জানিয়ে দিলেন উত্তরপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী। বিজেপিকে রুখতে পিসি-ভাইপোর ‘সফল জুটি’ বজায় রাখতে চান তিনি।গোরক্ষপুর, ফুলপুর, কৈরানা, নুরপুরের মতো উপনির্বাচনের গবেষণাগারে ইতিমধ্যেই সফল সপা-বসপা রসায়ন। খোদ যোগী আদিত্যনাথের গোরক্ষপুর আসনেই বিজেপি-কে ধরাশায়ী হতে হয়েছে জোটের কাছে। রবিবার মৈনপুরীর এক জনসভায় অখিলেশ বলেন, “২০১৯-এ বিজেপিকে পরাজিত করতে আমাদের এই জোট বহাল থাকবে। এর জন্য কিছু আসন ছাড়তে হলে আমি তাতে রাজি আছি।”প্রসঙ্গত, গত মাসে কৈরানা লোকসভা উপনির্বাচনে সপা এবং বসপা-র সমর্থনে রাষ্ট্রীয় জনতা দলের প্রার্থী তাবাসুম হাসান বিজেপি প্রার্থীকে হারান। এই আসনে ২০১৪-র লোকসভায় ৫০ শতাংশের বেশি ভোট পায় গেরুয়া শিবির। গতবারের তুলনায় এবারে বিরোধী জোট ৩ শতাংশ ভোট বাড়াতে পেরেছে। গতবার পৃথকভাবে সপা ২৯.৪৯ শতাংশ, বসপা ১৪.৩৩ শতাংশ এবং আরএলডি ৩.৮১ শতাংশ ভোট পেয়েছিল। এবারের উপনির্বাচনে ত্রিপাক্ষিক জোট হওয়ায় ৫১.২৬ শতাংশ ভোট এসেছে অখিলেশদের ঝুলিতে। ফুলপুরের আসনটিতেও সপা প্রার্থীর কাছে ধরাশায়ী হয় বিজেপি।গত লোকসভায় উত্তরপ্রদেশে একটি আসনও পাননি মায়াবতী। গেরুয়া ঝড়ে কার্যত উড়ে গিয়েছিল অখিলেশের সপাও।

মাত্র দুটি আসন পেয়েছিলেন অখিলেশ। কিন্তু লোকসভার নির্বাচনে পর অনেকটা সময় পেরিয়েছে। বিভিন্ন রাজ্যের নির্বাচনে দেখা গিয়েছে আরও শক্তিশালী হয়ে উঠেছে আঞ্চলিক দলগুলি। বিজেপিকে হারাতে এককাট্টা হতে পিছুপা হচ্ছে না একদা পারস্পারিক শত্রু দলগুলি। উল্লেখ্য, ২০১৯-র লোকসভা নির্বাচনে বিজেপিকে হারাতে অবিজেপি জোট গড়তে তত্পর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, চন্দ্রবাবু নায়ডুরা। এই আবহে পিসি-ভাইপো জুটির একের পর এক সাফল্য আরও অক্সিজেন যুগিয়েছে ফেডারেল ফ্রন্টের স্বপ্নে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *