সরকারি টাকার যথেচ্ছ খরচ আটকাতে সরব মুখ্যমন্ত্রী

 

বাংলা hunt ডেস্ক : ‘সরকারের টাকা মানেই জনগণের টাকা। তাই জনগণই যাতে বেশি উপকৃত হন, সেটাই দেখতে হবে’ গতকাল জলপাইগুড়িতে প্রশাসনিক বৈঠকে এভাবেই সরব হলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।সরকারি পরিষেবা গরিব মানুষের কাছে ঠিকমতো পৌঁছে দিতে আধিকারিকদের মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন, ‘জনগণের মুখোমুখি হতে হবে। পাবলিক মিট করুন। তাঁদের অভিযোগ শুনতে হবে। পুলিস, থানা, বিডিও–‌রা আবেদন জমা নেবেন। দ্রুত সমাধান করবেন। ফেলে রাখা চলবে না।’

মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্য, সাধারণ মানুষকে দায়িত্ব নিয়ে সরকারি পরিষেবাগুলি সম্পর্কে জানাতে হবে। লিফলেটের মাধ্যমে রাজ্য জুড়ে প্রচার করতে হবে। ১–১৫ আগস্টের মধ্যে এই কর্মসূচিতে ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে আধিকারিকদের। এদিন সরকারি খরচ কমানোর পরামর্শ দিয়ে বিভিন্ন প্রকল্পের দরপত্রে স্বচ্ছতা আনার কথা বলেন মলয়বাবু। তিনি বলেন, ‘এ নিয়ে স্পষ্ট নির্দেশিকা জারি হয়েছে। যতটুকু না করলেই নয়, ততটুকু খরচ করতে হবে। সরকারি টাকা মানেই যথেচ্ছ খরচ নয়। নিজের টাকার মতোই ভাবতে হবে।’
মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি সরকারি কাজে ১০০ দিনের পাশাপাশি দরিদ্র, প্রান্তিক কৃষকরাও যেন সুযোগ–‌সুবিধা পান, সেদিকেও লক্ষ্য রাখতে বলেন আধিকারিকদের।

সাবেক এলাকাগুলিতে উন্নয়নের ওপরও জোর দিতে বলেছেন তিনি। ৪০০ কোটি টাকা ব্যয়ে তিস্তার ওপর তৈরী হওয়া ‘জয়ী’ সেতু হলদিবাড়ি ও মেখলিগঞ্জে সহজে যাতায়াতের পক্ষে সুবিধাজনক হয়ে উঠবে। ওই কাজের সঙ্গে যুক্ত অফিসারদের কাছে সেতু নিয়ে খোঁজ নেন মমতা। তিনি বলেন, ‘উন্নয়নের জন্য আমরা এত কাজ করছি। সেগুলি সবাইকে তো জানাতে হবে।  প্রকল্পগুলি সব সরকারি অফিসে টাঙিয়ে রাখতে হবে। মানসিকতা পাল্টান। সব কাজ করা যাবে। আমাদের ঘরেই রয়েছে কতরকম সরকারি প্রকল্প।’ মমতা বলেন,‘মনে রাখবেন সরকারের টাকা মানেই জনগণের টাকা। তাই জনগণই যাতে বেশি উপকৃত হন, সেটাই দেখতে হবে। আমাদের আয় কম। কর্মীদের বেতন, ডিএ দিতে খরচ হবে ৫০০০ কোটি টাকা। কন্যাশ্রী, রূপশ্রীর মতো অসংখ্য প্রকল্পের টাকা জোগাড় করতে হয়। বিশ্বাস, ভরসা রাখুন আমাদের সরকারের ওপর। সারা পৃথিবীতে এমন সরকার নেই যারা এত কাজ করছে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


  • Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
    error: