খতনা প্রথা কিভাবে ধর্মীয়প্রথা হতে পারে, প্রশ্ন শীর্ষ আদালতের

 

বাংলা hunt ডেস্ক : খতনা প্রথা কিভাবে ধর্মীয়প্রথা হতে পারে, এবার এই মোক্ষম প্রশ্নটি করল শীর্ষ আদালত। বোহরা মুসলমান সম্প্রদায়ের একটি উল্লেখযোগ্য প্রথা হল খতনা। এই প্রথা অনুসারে গোপনাঙ্গচ্ছেদ করা হয়। আর এই প্রথাকে ইসলামে অত্যন্ত পবিত্র মনে করা হয়। কিন্তু এই প্রথার বিরুদ্ধে সরব হয়ে সুপ্রিম কোর্টের দারস্থ হয়েছিলেন আইনজীবী সুনীতা তেওয়ারি। আর এই মামলায় সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্রের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ প্রশ্ন তুলেছে কিভাবে অঙ্গচ্ছেদের মত প্রথা ধর্মের গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ হতে পারে। কেননা খতনা প্রথায় শিশুদের বরাবরের মত ক্ষতি হয়। আর কন্যা শিশুদের ক্ষেত্রে এই প্রথা কখনওই মান্যতা দেওয়া যায় না। তাই এই প্রথা নিষিদ্ধ হওয়া উচিৎ। পাশাপাশি এই প্রথা নিয়ে প্রশ্ন তুলে সুপ্রিম কোর্ট বলেছে, শিশুদের সঙ্গে জোর করে এমন আচরণ পকসো আইন উল্লঙ্ঘন হিসেবে গণ্য করা হতে পারে। আগামী ১৬ জুলাই এই মামলার শুনানি। প্রসঙ্গত, আমেরিকা, ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া সহ ২৭টি আফ্রিকার দেশে খতনা প্রথা নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এবার ভারতে কি হয় সেটাই দেখার বিষয়।

প্রতি মুহূর্তের সব রকম খবর জানতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইট করুন


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *