গিনেস বুকে জায়গা করে নিল অসমের ১০১ ফুট দুর্গা

বাংলাhunt  : অসমের গুয়াহাটিতে তৈরি দুর্গা বিশ্বের সর্ববৃহত্‍ বাঁশ ভাস্কর্য হিসেবে গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডের পাতায় স্থান করে নিল। বাঁশের তৈরি এই প্রতিমা লম্বায় ১০১ ফুট। ‌

শিল্পী নুরুদ্দিন আহমেদের পরিকল্পনায় ৪০ জন শিল্পী দিনরাত এক করে দূর্গাটি তৈরি করেছেন। সৌজন্যে গুয়াহাটির বিষ্ণুপুর সর্বজনীন দুর্গাপুজো কমিটি।

 

শিল্পী নরুদ্দিন জানান, অনেক বাধা বিপত্তি পেরিয়ে এই প্রতিমাটি তৈরি করা হয়েছে। প্রথমে ঠিক হয়েছিল প্রতিমা হবে ১১০ ফুটের। সেইমতোই কাজ চলছিল গত ১ অগস্ট থেকে। কিন্তু, ১৭ অগস্টের প্রবল ঝড়ে গোটা কাঠামোটি ভেঙে পড়ে। আবার পূর্ণ উদ্যোমে কাজ শুরু করা হয়।

 

এই পুজোর সমন্বয়ক দীপ আহমেদ জানান, প্রাকৃতিক দুর্যোগের পর আদৌ এই পরিকল্পনা রূপ পাবে কি না, তা নিয়ে সন্দেহ দানা বেঁধেছিল। কিন্তু, আমরা একেবারের জন্যও হাল ছাড়িনি। চ্যালেঞ্জ হিসেবেই নিয়েছিলাম। ঠিক করেছিলাম, যে ভাবেই হোক ছ-দিনের মধ্যে গোটা কাঠামোটিকে আমরা দাঁড় করাব। সেইমত প্রতিমাটি বাস্তবায়িত হওয়ায় আমরা খুশি।

তিনি নিজে একজন মুসলিম হয়ে এভাবে হিন্দুদের উত্‍‌সবের দুর্গা বানাচ্ছেন দেখে অনেকেই বিস্ময় প্রকাশ করেছেন। এ নিয়ে নুরুদ্দিনের বক্তব্য পরিষ্কার, ‘শিল্পীর আবার কোনও ধর্ম হয় নাকি? মানবতার সেবাই আমার এক এবং একমাত্র ধর্ম।’ এই প্রতিমার অলঙ্কার, থেকে শুরু করে সবকিছুতেই বাঁশ ব্যবহার করা হয়েছে। কাঠামো থেকে সাজপোশাক সবটাই বাঁশ ব্যবহার করে।