মাওবাদীদের সাথে গুলির লড়াইয়ে প্রান হারালো মুর্শিদাবাদের এক জওয়ান

বেলডাঙ্গাঃ– ঝাড়খন্ডের ডিলুডি এলাকায় বুধবার ভোরে মাওবাদীদের সাথে গুলির লড়াইয়ে প্রান হারালো মুর্শিদাবাদের আরও এক জওয়ান। নিহত জওয়ানের নাম নির্মল ঘোষ(২৮)। বাড়ি মুর্শিদাবাদ জেলার বেলডাঙ্গা থানার মহুলা ঘোষপাড়া এলাকায়। বুধবার সকালে সি আর পি এফ আধিকারিক ফোন মারফত মৃত জওয়ানের পরিবারকে এই খবর জানান। মৃত্যুর খবর গ্রামে পৌঁছাতেই শোকের ছায়া নেমে আসে মৃত জওয়ানের পরিবার ও গ্রামবাসীদের মধ্যে। মৃত জওয়ানের স্ত্রী মামনী ঘোষ ও মা ভাগ্যমতী ঘোষ মাঝে মাঝে সজ্ঞা হারাচ্ছেন। মাথায় জল ও হাওয়া করে সুস্থ করার চেষ্টা করছেন প্রতিবেশীরা।

বেলডাঙ্গা থানার মহুলা ঘোষপাড়ার বাসিন্দা নারায়ন ঘোষের একমাত্র ছেলে মৃত জওয়ান নির্মল ঘোষ ২০০৭সালে রেজিনগর রামপাড়া হাইস্কুল থেকে মাধ্যমিক পাশ করেন। ২০১১সালে শিলিগুড়িতে সি আর পি এফ এর চাকুরীতে যোগ দেন। এরপর কেরালায় ৩বছর, ওড়িষ্যায় ৩বছর কাটিয়ে মাস ছয়েক আগে ঝাড়খন্ডের ডিলুডি এলাকায় সি আর পি এফ ইউনিটে যোগ দেন। মে মাসের শেষ সপ্তাহে ৪০দিনের ছুটিতে বাড়িতে আসেন। ছুটি কাটিয়ে জুলায়ের প্রথম সপ্তাহে ঝাড়খন্ডে কাজে যোগ দেন। সূত্রের খবর বুধবার ভোরে মাওবাদীদের সাথে গুলির লড়াই চলাকালীন মাথার পিছন দিকে গুলি লাগে নির্মল ঘোষের। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় ওই জওয়ানের। পরিবার সূত্রে খবর মাস আটেক আগে রেজিনগরের মামনি ঘোষের সঙ্গে ওই জওয়ানের বিয়ে হয়। স্ত্রী মামনী ঘোষ ৬মাসের অন্তঃসত্ত্বা। পরিবারের একমাত্র রোজগেরে ছেলের মৃত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে পরিবারের উপর। পুত্রের শোকে বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েছেন বাবা নারায়ন ঘোষ ও মা ভাগ্যমতী ঘোষ। গ্রামের ছেলের অকাল মৃত্যুতে এলাকবাসীরাদের মধ্যে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। এক গ্রামবাসী জানিয়েছেন অত্যান্ত হাসিখুশি ও মিশুকে ছেলে ছিলেন নির্মল। ছুটিতে গ্রামে আসলেই সকলের সাথে হেসে কথা বলতেন। বেলডাঙ্গা থানার পুলিস সুত্রে জানা গিয়েছে যে বুধবার রাত্রে মৃতদেহ গ্রামের বাড়িতে নিয়ে আসা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


  • Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
    error: Content is protected !!