পুত্রবধূর নামে সম্পতি লিখিয়ে না দেওয়ায় ভাড়াটে গুন্ডা দিয়ে শ্বশুর সহ পরিবারের সদস্যদের মারধোড় করার অভিযোগ

মালদহ- পুত্রবধূর নামে সম্পতি লিখিয়ে না দেওয়ায় ভাড়াটে গুন্ডা দিয়ে শ্বশুর সহ পরিবারের সদস্যদের মারধোড় করার অভিযোগ উঠল অভিযুক্তের বিরুদ্ধে। বাদ যায়নি অভিযুক্তের স্বামীও।গুরুতর জখম অবস্থায় মালদহ মেডিকেলে চিকিৎসাধীন শ্বশুর৷পরিবারের সবাইকে মারধর করে বাড়িতে থাকা টাকাপয়সা, সোনার গয়না নিয়ে পলাতক পুত্রবধূ৷বৃহস্পতিবার রাতে মালদহের ইংরেজবাজার শহরের পূর্ব দেশবন্ধুপাড়ায় ঘটনাটি ঘটেছে।অভিযুক্ত গৃহবধূর বিরুদ্ধে ইংরেজবাজার থানায় অভিযোগ জানালে তদন্তে নামে পুলিশ।

পরিবার সুত্রে জানা গিয়েছে জখম শ্বশুরের নাম সন্তোষ সরকার ও শ্বাশুড়ি শান্তনা সরকার।সন্তোষবাবু অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মী৷ তাঁর এক ছেলে, এক মেয়ে৷ মেয়ের বিয়ে হয়ে গিয়েছে। ২০১৩ সালে একমাত্র ছেলে জিশু প্রেম করে বিয়ে করে সোনালি চৌধুরিকে। জিশু শহরেই ব্যবসা করেন৷ তাঁদের তিন বছরের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে।পরিবারের লোকেদের অভিযোগ,বিয়ের পর গত তিন বছর ধরে পুত্রবধূ তাঁদের বাড়ি ও জমিজায়গা নিজের নামে করে দেওয়ার জন্য চাপ দিচ্ছিল৷ এতে তাকে মদত দিত তার মা প্রতিমা চৌধুরি ও ভাই পঙ্কজ চৌধুরি৷ এনিয়ে বাড়িতে অশান্তি লেগেই থাকত৷ এইনিয়ে স্বামীর সঙ্গেও তার বনিবনা ছিল না৷ বৃহস্পতিবার বাড়িতে একা ছিলেন সন্তোষবাবু।

 

অভিযোগ সেই সময় বেশ কিছু গুণ্ডা নিয়ে সোনালি বাড়িতে চড়াও হয়। বাড়ি ও দুটি বাগান তার নামে লিখে দিতে তাঁর শ্বশুরকে চাপ দেয়৷ রাজী না হলে তাঁকে বেধড়ক মারধর করে৷ খবর পেয়ে বাড়িতে ছুটে আসে অভিযুক্তের স্বামী সহ পরিবারের সদস্যরা। তাদের অভিযুক্তরা ব্যাপক মারধোড় করে। প্রতিবেশিরা ছুটে এসে তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায়।অভিযোগ সেই সুযোগে অভিযুক্ত গৃহবধূ বাড়ীর নগদ টাকা, সোনার গয়না ও মেয়েকে নিয়ে বাড়ী থেকে চম্পট দেয়। মন্টুবাবু বলেন,বৃহস্পতিবার তিনি বাড়িতে একা ছিলেন। বৌমা বেশ কয়েকজনকে নিয়ে বাড়ীতে আসে৷

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


  • Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
    error: Content is protected !!