শেয়ার করুন

 

 

BIG BREAKING NEWS   পঞ্চায়েত মামলার শুনানি সিঙ্গল বেঞ্চেই পাঠাল হাইকোর্টের বিচারপতি বিশ্বনাথ সমাদ্দার ও অরিন্দম মুখোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চ। মঙ্গলবার সিঙ্গল বেঞ্চে পঞ্চায়েত মামলার শুনানি। হাইকোর্টের নির্দেশ, যত দ্রুত সম্ভব পঞ্চায়েত মামলা শেষ করতে হবে। বিচারপতিদের আরও নির্দেশ, মামলার দ্রুত নিষ্পত্তির জন্য প্রয়োজনে প্রতিদিন শুনানি করতে হবে।

 

রায়ের পর তৃণমূলের আইনজীবী তথা সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, মঙ্গলবার হাইকোর্টে বিচারপতি সুব্রত তালুকদারের চেম্বারেই তিনি ফের এই মামলাটি তুলবেন।

 

শুনানিতে রাজ্যের তরফে নির্বাচন প্রক্রিয়া এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার উপর বাড়তি গুরুত্ব দেওয়া হয়৷ রাজ্যের তরফে আইনজীবী কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় সংবিধানের ২৪৩-ও ধারা তুলে বিচারপতি বিশ্বনাথ সমাদ্দার ও অরিন্দম মুখোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চে সওয়াল করতে থাকেন৷ বিজেপি যে মামলা করেছিল, তাতে ত্রুটি রয়েছে বলেও এদিন অভিযোগ তোলেন কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়৷ আদালতের কাছে তথ্য গোপন করে বিজেপি একই ইস্যুতে সুপ্রিম কোর্টে মামলা দায়ের করে হাই কোর্টের সঙ্গে প্রতারণা করেছে বলেও অভিযোগ তোলেন তিনি৷ রাজ্যের তরফে অভিযোগ তোলা হয়, সিঙ্গল বেঞ্চের গত সপ্তাহের রায় পক্ষপাতদুষ্ট৷

 

২ বিচারপতি তৃণমূলের আইনজীবীকে প্রশ্ন করেন, ‘সিঙ্গেল বেঞ্চে মামলা চলছে, তবুও আপনারা কেন ডিভিশন বেঞ্চে?’ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় উত্তর দেন, রিট পিটিশনের শুনানি করতে পারে না সিঙ্গেল বেঞ্চ। তাই ডিভিশন বেঞ্চে এসেছি।’ এরপর বিচারপতিদ্বয় পাল্টা প্রশ্ন করেন, ‘সিঙ্গেল বেঞ্চে পিটিশন দাখিলে কার আপত্তি?’ পঞ্চায়েত আইনের ৪৬(২) ধারা উল্লেখ করে কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, ৯ এপ্রিলে কমিশনের বিজ্ঞপ্তি অবৈধ। যদিও শাসকদলের আইনজীবীর বক্তব্ সন্তুষ্ট নন বিচারপতিরা।বিচারপতিদ্বয়ের মন্তব্য,’সিঙ্গেল বেঞ্চের মনোভাব আগাম আন্দাজ করা ঠিক নয়।’তৃনমূল আইনজীবী কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়কে প্রথমেই সিঙ্গেল বেঞ্চে যাওয়ার পরামর্শ দেন তঁারা

loading...
Loading...

আপনার মতামত প্রদান করুন