বেলারুশিয়ান ক্লাব “ডায়নামো ব্রেস্ট” এর চেয়ারম্যান এর পদে মারাদোনা

 

অজয় রায়, বাংলা hunt : সম্প্রতি সংযুক্ত আরব আমরশাহী এর দ্বিতীয় ডিভিশন ক্লাব “আল ফুজাইরাহ” এর কোচের ভূমিকায় দেখা গেছিলো মারাদোনা কে। ক্লাব কর্তৃপক্ষের আশা ছিল তার ধরেই দেশের সর্বোচ্চ লিগে খেলবে তাদের দল। কিন্তু তা না হওয়ায় বিশ্বখ্যাত এই ফুটবলার এর সাথে চুক্তি মেয়াদ বাড়াই সেই দল। এইবার একেবারে অন্য ভূমিকায় দেখা যেতে চলেছে” ফুটবলের রাজপুত্র “কে। ডাগ আউট ছেড়ে একেবারে প্রশাসক এর ভূমিকায় আসতে চলেছেন ডিয়েগো। বেলারুশিয়ান ক্লাব “ডায়নামো ব্রেস্ট” এর চেয়ারম্যান এর পদে নিযুক্ত হয়েছেন তিনি। মঙ্গলবার নিজের ইন্সটাগ্রাম এক্যাউন্টে এই কথা জানিয়েছেন এই প্রাক্তন তারকা ফুটবলার। সেখানে তিনি ধন্যবাদ জানিয়েছেন সেই সংশ্লিষ্ট ক্লাব টিকে তার উপর ভরসা রাখার জন্যে। তার সাথে তিন বছরের জন্য চুক্তি করেছে সেই ক্লাব।

দেশের হয়ে ১৯৮৬ এর বিশ্বকাপ জিতেছেন এই ফুটবল বিস্ময়। সেবার রূপকথার ন্যায় নিজের দলকে একক দক্ষতায় ফাইনালে নিয়ে গিয়ে আর্জেন্টিনা কে বিশ্বসেরার শিরোপা এনে দিয়েছিলেন। ফের পরের বার অর্থাৎ ১৯৯০ এর বিশ্বকাপে ফাইনালে উঠলেও আর ট্রফি জেতা হয়নি। এখনও মানুষের মনে তার সেবারের কান্নার ছবি স্পষ্ট। ক্লাব কেরিয়ারে নাপোলি, সেভিয়া, বার্সেলোনা, বোকা জুনিয়র্স এর হয়ে খেলেছিলেন তিনি।

১৯৯৪ সালে প্রথমবারের মতো কোচের ভূমিকায় আসতে দেখা যায় তাকে। সেবার “মানদিউ দে কোরিয়েন্তেস” নামের একটি দলের কোচ হয়ে নিজের কোচিং কেরিয়ার শুরু করে ডিয়েগো। পরের বছর আর্জেন্টিনার “রেসিং” ক্লাবের কোচের পদাসীন হন। এরপর একটা লম্বা বিরতির পর নিজের দেশের কোচের ভূমিকায় অবতীর্ণ হন মারাদোনা। ২০১০ এর বিশ্বকাপের কথা মাথায় রেখে দেশের ফুটবল নিয়ামক সংস্থা তার সাথে চুক্তি করে ২০০৮ এ। 

সেবার বিশ্বকাপে আশা জাগিয়েও কোয়ার্টার ফাইনাল ম্যাচ জার্মানির কাছে ৪-০ গোলে পরাস্ত হয় তার দল। এরপর মাঝে সাময়িক বিরতির পর দুবাই এর আল ওয়াসাল ক্লাবের কোচ করা হয় তাকে। এবছর সেই ক্লাবের দায়িত্বে ছিলেন তিনি। এরপর এক দীর্ঘ বিরতির পর ২০১৭ সালে আল ফুজাইরাহ এর কোচের পদে নিয়োগ করা হয় তাকে। সংশ্লিষ্ট ক্লাব টির আশা ছিল তার হাত ধরেই দেশের প্রথম ডিভিশন এ উঠে আসবে তাদের ক্লাব, কিন্তু তা না হওয়ায় চুক্তির মেয়াদ বাড়াইনি ক্লাব কর্তৃপক্ষ। এবার একেবারে অন্য ভূমিকায় দেখা যেতে চলেছে তাকে। এখন প্রশাসকের ভুমিকায় তিনি কি করেন এখন সেইটাই দেখার।