আবারও বাংলাদেশে গুলি করে হত্যা মুক্তমনা ব্লগারকে!

 

বাংলা hunt ডেস্ক : বাংলাদেশে মুক্তমনা ব্লগার হত্যা অব্যহত। আবারও এক ব্লগারকে গুলি করে হত্যার অভিযোগ উঠল। গতকাল সন্ধ্যায় মধ্যপাড়া ইউনিয়নের কাকালদী এলাকায় গুলি করে হত্যা করা হয় বিশিষ্ট মুক্তমনা ব্লগার শাহজাহান বাচ্চুকে(৬০)। দুটি মোটরসাইকেলে চারজন আরোহী বাচ্চুকে ঘিরে ধরে। তখন বাচ্চু একটি ওষুধের দোকান থেকে ফিরছিলেন। এরপর তাকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় বাচ্চুর। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে বাচ্চুকে সিরাজদিখান উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

বাচ্চু বিশাখা প্রকাশনী নামে একটি প্রকাশনা সংস্থা চালাতেন। মূলত কবিতার বই প্রকাশিত হতো তাঁর প্রাকাশনা সংস্থা থেকে। এছাড়াও কমিউনিস্ট পার্টি অব বাংলাদেশের মুন্সিগঞ্জ জেলার সাধারণ সম্পাদকও ছিলেন তিনি। ‘আমাদের বিক্রমপুর’ নামের একটি মাসিক পত্রিকার সম্পাদক সহ একাধিক মাসিক পত্রিকা ও ব্লগে লেখালেখি করতেন তিনি। তবে বরাবরই খোলামেলা লেখনির জন্যই খ্যাতি অর্জন করেছিলেন বাচ্চু। বিশেষ করে ধর্ম নিরপেক্ষতার প্রশ্নে তাঁর কলম বরাবরই আপোষহীন ছিল। এই কারণেই অতীতে বহুবার তাঁকে খুনের হুমকিও দেওয়া হয়েছে।

বাচ্চুর নৃশংস হত্যার প্রতিবাদে একাধিক সংগঠন প্রতিবাদ মিছিল করে। মানবন্ধন নামে একটি সংগঠন ও বাচ্চুর জন্মস্থান মুন্সীগঞ্জবাসীও প্রতিবাদ মিছিল করে। বাচ্চুর ছবি ও ফেস্টুন হাতে মিছিলে হাঁটতে দেখা যায় বিক্ষোভকারীদের। তারা সকলেই এই হত্যার দ্রুত সমাধান চেয়েছেন।

এখনও পর্যন্ত কোনও সংগঠন এই খুনের ঘটনার দায় স্বীকার করেনি। তবে তদন্তকারী পুলিশ আধিকারিকরা মনে করছেন, ঘটনার সঙ্গে কোনও কট্টর ইসলামি সংগঠন ‌যুক্ত থাকতে পারে। পাশাপাশি খুনের সম্ভাব্য অন্য কারণগুলোও তদন্তে গুরুত্ব দিচ্ছেন তদন্তকারী আধিকারিকরা। সেই সঙ্গে রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ বা কারও সঙ্গে পূর্বশত্রুতাও রয়েছে কি তা তদন্তে গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। প্রসঙ্গত, এই প্রথমবার নয়। ইতিপূর্বেও বাংলাদেশে কট্টরপন্থী ইসলামি সংগঠনের হাতে খুন হয়েছেন একাধিক মুক্তমনা ব্লগার। যেমন ২০১৫ সালে ২৬ ফেব্রুয়ারি খুন হন বাংলাদেশের বিশিষ্ট ব্লগার অভিজিত রায়। এরপর অভিজিতের প্রকাশক ফয়সল আরেফিন দীপনও খুন হন একটি কট্টরপন্থী সংগঠনের হাতে।