পঞ্চায়েত নির্বাচনের আহত কংগ্রেস কর্মীদের হাসপাতালে দেখতে গেলেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী

মুর্শিদাবাদঃ– সোমবারের পঞ্চায়েত নির্বাচনের আহত কংগ্রেস কর্মীদের হাসপাতালে দেখতে গেলেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী। এদিন সকাল সাড়ে ১০টা নাগাদ মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে আহত কংগ্রেস কর্মীদের দেখতে গিয়ে তাদের সুচিকিৎসার পরামর্শ দেন তিনি। সেখান থেকে বেড়িয়ে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে অধীর চৌধুরী জানান যে গত কালের হিংসাত্বক নির্বাচনে শাসক দলের হাতে আহত হয়েছেন কিশোর থেকে মহিলা এবং বয়স্ক মানুষ। বাংলার মুখ্যমন্ত্রী বলেছিলেন পঞ্চায়েত নির্বাচন উৎসবের মতো পালন করতে হবে, বাস্তবকই তিনি উৎসবের মতো পালন করেছেন? এটা রক্তের হোলি উৎসব তিনি পালন করেছেন তাই আজ সারা বাংলা রক্তাক্ত হয়েছে।

জানি না আরো কত মানুষকে প্রান দিতে হবে, কারন নির্বাচন এখনো শেষ হয়ে যায়নি। পরবর্তী নির্বাচনের সন্ত্রাস অব্যাহত, মার ধোর হিংসা অব্যাহত। তাই স্বাভাবিক ভাবেই এই বাংলার মুখ্যমন্ত্রীকে জবাব দিহি করতে চাই কারন তিনি বাংলার মানুষকে কথা দিয়েছিলেন, তিনি বাংলার মানুষকে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন যে পঞ্চায়েত নির্বাচন সুষ্ঠ এবং শান্তিপূর্ন হবে, সবাই ভোট দেবেন প্রশাসন থাকবে। কিন্তু কালকে কোথায় প্রশাসন জানা গেল না, কোথায় নির্বাচন কমিশন জানা গেল না, কোথায় বাংলার মুখ্যমন্ত্রী জানা গেল না কিন্তু ভোট হয়ে গেল সারা বাংলা রক্তাক্ত হল। আর এই বাংলাকে রক্তাক্ত হওয়ার পিছনে যদি কাউকে বড় অভিযুক্ত করা হয় সেই অভিযুক্তের নাম বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী। কারন তিনি কথা দিয়েছিলেন আর তিনিই কথা রাখেন নি। তিনি আরও বলেন কোন দলে কতজন মারা গেল সেটা বড় কথা নয়। বড় কথা বাংলায় কি ভোট হল? এটা কি আমাদের কাছে কাঙ্খিত ছিল? এই রক্ত ঝরা কি জরুরী ছিল? এত মানুষের মৃত্যু কি আবশ্যিক ছিল? বলে প্রশ্ন করেন অধীর চৌধুরী।

প্রতি মুহূর্তের সব রকম খবর জানতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইট করুন


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *