Home বঙ্গ দিঘায় বেড়াতে গিয়ে আত্মহত্যা

দিঘায় বেড়াতে গিয়ে আত্মহত্যা

0
শেয়ার করুন

পূর্ব মেদিনীপুর আজহার মুনির ।। হুগলির সিঙ্গুর থেকে দিঘায় বেড়াতে এসে হোটেলে আত্মহত্যা করলেন এক ব্যক্তি।মৃত ব্যক্তির নাম অরুপ কুমার মাইতি (৪৭)।বৃহস্পতিবার সকালে নিউ দিঘার একটি বেসরকারি হোটেলের ঘর থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় তাঁর মৃতদেহ উদ্ধার হয়েছে।হোটেল সুত্রে জানা গিয়েছে,বুধবার সন্ধ্যে ৬.৩০ টা নাগাদ নিউ দিঘার একটি হোটেলে এসে উঠেছিলেন সিঙ্গুরের গোপালনগরের বাসিন্দা অরুপ মাইতি।তিনি একদিনের জন্য হোটেলের ঘর ঘর ভাড়া নিয়েছিলেন।বৃহস্পতিবার সকাল ৯.৩০ টার পর হোটেল ছেড়ে যাওয়ার কথা ছিল তাঁর।এদিন সকাল ৯.৩০ টা নাগাদ ঘর ছাড়ার সময় পেরিয়ে যাচ্ছে দেখে হোটেলের কর্মীরা ওই ব্যক্তিকে ডাকাডাকি শুরু করেন।কিন্তু অরুপবাবুর ঘরের দরজা ভেতর থেকে বন্ধ ছিল।অনেক ডাকাডাকির পরও কোনও সাড়া না পেয়ে শেষ পর্যন্ত হোটেল কর্মীরা দিঘা থানায় খবর দেন।এরপরেই পুলিশ এসে দরজা ভেঙে ওই ব্যক্তিকে সিলিংয়ের সঙ্গে গামছা দিয়ে ঝুলতে দেখেন।পুলিশ মৃতদেহটিকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।দিঘা থানার ওসি বাসুকি নাথ ব্যানার্জী জানিয়েছেন,মৃত ব্যক্তির পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা চলছে।মৃতদেহটিকে ময়নাতদন্তের জন্য কাঁথি মহকুমা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।দিঘার হোটেল মালিকদের সংগঠন সুত্রে খবর,হোটেলের ঘর ভাড়ায় নিয়ে একাধিক ঘটনা ঘটেছে দিঘায়।সেই কারনে বেশ কিছু সতর্কতা অবলম্বন করেছে প্রশাসন।প্রতিটি হোটেলে সিসিটিভি ক্যামেরা লাগানো বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।এছাড়াও কোনও ব্যক্তি একা হোটেলে থাকতে চাইলে তাঁকে কোনও ভাবেই ঘর না দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।তাহলে কি হোটেল কর্মীদের কোনও গাফিলতি ছিল?ওই ব্যক্তি নিজের পরিচয় পত্র হিসেবে নিজের আধার কার্ডের প্রত্যয়িত নকল দিয়েছেন।তবে তিনি একা হোটেলের ঘর যখন যাচ্ছিলেন তখন কেন তাঁকে আটকানো হল না?এক্ষেত্রে কি হোটেল কর্মীদের গাফিলতি?উঠছে প্রশ্ন।হোটেল কর্মীরা জানিয়েছেন,তাঁরা ওই ব্যক্তিকে প্রথমে হোটেলে ঘর দিতে রাজি ছিলেন না।বহু অনুরোধের পর তাঁকে হোটেলে থাকার অনুমিত দেওয়া হয়েছিল।তবে এই ঘটনা তাঁদের চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিল।এই বিষয়টি আগামীদিনে নজরে রাখবেন বলে হোটেল কর্মীরা জানিয়েছেন।

 

সৌজন্য AMG পত্রিকা

শেয়ার করুন

আপনার মতামত প্রদান করুন